প্রশ্ন কর্তার নাম : নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

উত্তর: আপনার প্রশ্নের জন্য ধন্যবাদ

মাসিককালীন সময়ে শরীর থেকে যে রক্ত বের হয় তা কোন বিপদজনক বা দূষিত রক্ত নয়। মাসিক মেয়েদের জীবনের একটি স্বাভাবিক প্রক্রিয়া এবং সুস্থভাবে বেড়েওঠা ও সন্তানধারণ ক্ষমতা লাভের লক্ষণ। মেয়েদের তলপেটের জরায়ুর দু’পাশে দু’টি ছোট থলি থাকে যাকে ওভারি বা ডিম্বাশয় বলে। একটি নির্দিষ্ট বয়সের পর মেয়েদের ডিম্বাশয় থেকে প্রতিমাসে একটি করে ডিম বা ডিম্বাণু পরিপক্ক হয়। একে বলে ডিম্বস্ফোটন। পরে এই ডিম্বাণু ডিম্বনালির পথ দিয়ে দুই ডিম্বাশয়ের মাঝ খানে অবস্থিত জরায়ুতে এসে আশ্রয় নেয়। এই সময়ে জরায়ুতে ডিম্বানুকে ধরে রাখার জন্য রক্তে ভরা একটি পর্দা বা আস্তরন তৈরী হয়। এই অবস্থায় ডিম্বানু ৭২ ঘন্টা পর্যন্ত থাকে। এই সময়ের মধ্যে ডিম্বানু নিষিক্ত না হলে এই রক্তে ভরাপর্দা ও ডিম্বানু ফেটে যায় এবং যোনি পথ দিয়ে বেরিয়ে আসে। এই ঘটনা ৩ দিন থেকে ১০ দিন পর্যন্ত স্থায়ী হতে পারে। প্রত্যেক মাসে হয় বলে এই ঘটনাকেই মাসিক বা ঋতুস্রাব বা রজ:স্রাব বা পিরিয়ড বা মিনিস্ট্রুয়েশন বলে। অনেকেই একে শরীর খারাপ বা অসুস্থতা বলে থাকেন, যা মোটেই ঠিক নয়। এটি শরীর খারাপ বা অসুস্থতার কোনো ব্যাপারই নয়, বরং একটি স্বাভাবিক প্রাকৃতিক ব্যাপার।